বাংলা একাডেমি সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৫ ডিসেম্বর ২০২১

শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও মহান বিজয় দিবস ২০২১ উপলক্ষ্যে বক্তৃতানুষ্ঠান


প্রকাশন তারিখ : 2021-12-15
বাংলা একাডেমি আজ ৩০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৮/১৫ই ডিসেম্বর ২০২১ বুধবার একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে সকাল ১১:০০টায় শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও মহান বিজয় দিবস ২০২১ উপলক্ষ্যে বক্তৃতানুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন বাংলা একাডেমির সচিব ও ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক 
এ. এইচ. এম. লোকমান। শহিদ বুদ্ধিজীবী স্মরণে একক বক্তৃতা প্রদান করেন মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি ডা. সারওয়ার আলী। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে একক বক্তৃতা প্রদান করেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. আতিউর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ। 
 
স্বাগত বক্তব্যে এ. এইচ. এম. লোকমান বলেন, বুদ্ধিজীবীদের হত্যা করে পাক-হানাদাররা বাঙালির বিজয়কে অপূর্ণ করতে চেয়েছিল কিন্তু শহিদ বুদ্ধিজীবীদের প্রদর্শিত পথেই বাংলাদেশ আজ দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে। 
 
শহিদ বুদ্ধিজীবী স্মরণে একক বক্তৃতায় ডা. সারওয়ার আলী বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের পাটাতন নির্মাণে শহিদ বুদ্ধিজীবীরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন; তাই ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের ইতিবাচক বিনির্মাণে তাঁদের আসন্ন অবদানকে নস্যাৎ করতেই পাক-হানাদার ও তাদের এদেশীয় দোসররা একাত্তরের মার্চ থেকে বিজয়ের উষালগ্ন পর্যন্ত ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বুদ্ধিজীবীদের হত্যাযজ্ঞে মেতে উঠে। বুদ্ধিজীবীদের হারানোর ক্ষত এখনও লেগে আছে বাংলার রক্তভেজা প্রান্তরে। বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শহিদ বুদ্ধিজীবীদের আদর্শে বাংলাদেশ গঠনেই হতে পারে তাঁদের প্রতি জাতির শ্রেষ্ঠ শ্রদ্ধা নিবেদন। 
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে একক বক্তৃতায় ড. আতিউর রহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের নেতৃত্বে ১৯৭১—এর মহান মুক্তিযুদ্ধে বাঙালির বিজয় এবং বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ৫০ বছরে দাঁড়িয়ে বিশ্ববাসী সর্বক্ষেত্রে বিজয়ী বাংলাদেশের উপস্থিতি লক্ষ করছে। আর্থ-সামাজিক সমৃদ্ধি, শিক্ষা, মানবসম্পদ, নারীর ক্ষমতায়নসহ সকল সূচকে সুবর্ণজয়ন্তীর বাংলাদেশ পৃথিবীর মানচিত্রে আজ এক সুবর্ণ-শিরোনাম। 
সভাপতির বক্তব্যে ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ বলেন, বাংলাদেশের আপামর মানুষ কোনো জাগতিক বা বস্তুগত স্বার্থসিদ্ধির জন্য মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেনি বরং একটি শোষণহীন, সাম্যবাদী, মানবিক সমাজ গঠনের জন্য তাঁরা মরণপণ যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। আমরা যদি অগণিত মানুষের এই মূল্যবান আত্মত্যাগের মর্ম অনুধাবন না করি তবে আমাদের সকল স্মরণ ও উৎসব আনুষ্ঠানিকতায় পর্যবসিত হবে। 
অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধের কবিতা আবৃত্তি করেন বাচিকশিল্পী ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায় এবং লায়লা আফরোজ। মুক্তিযুদ্ধের গান পরিবেশন করেন সংগীতশিল্পী শাহীন সামাদ এবং কাদেরী কিবরিয়া। 
 
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলা একাডেমির উপপরিচালক (চলতি দায়িত্ব) সাহেদ মন্তাজ। 
 
মহান বিজয় দিবসে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদনের কর্মসূচি
আগামীকাল ১৬ই ডিসেম্বর ২০২১ বৃহস্পতিবার মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে বাংলা একাডেমির পক্ষ থেকে সকাল ৭:৩০টায়  সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহিদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। 
 
সমীর কুমার সরকার 
পরিচালক (চলতি দায়িত্ব)

Share with :

Facebook Facebook